অপপ্রচার করাই বিএনপির রাজনীতি: কাদের

অপপ্রচার করাই বিএনপির রাজনীতি: কাদের

অপপ্রচার করাই বিএনপির রাজনীতি: কাদের

নিজস্ব প্রতিবেদক

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। ফাইল ছবি

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। সরকারের বিরোধিতা করতে গিয়ে বিএনপি দেশের বিরোধিতায় নেমে মিথ্যাচার করছে বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, মিথ্যাচারের ঢোল বাজিয়ে দেশের মানুষের বিরুদ্ধে অপপ্রচার করাই হচ্ছে বিএনপির রাজনীতি।

আজ রোববার সরকারি বাসভবনে নিয়মিত ব্রিফিংয়ে এসব কথা বলেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, বৈশ্বিক এই সংকটে দায়িত্বশীল ভূমিকা পালন না করে দেশবিরোধী অপপ্রচার ও মিথ্যাচারে লিপ্ত বিএনপি নেতারা। এসব কারণেই বিএনপি দিন দিন জনবিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে।

ইতালিপ্রবাসী এক বিএনপি নেতার দেশবিরোধী অসত্য বক্তব্য প্রবাসীদের মাঝে তীব্র ক্ষোভ ও অসন্তোষ তৈরি করেছে বলে উল্লেখ করেন ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, বাংলাদেশে নাকি ১০ লাখ মানুষ করোনায় আক্রান্ত, দেশে কোনো চিকিৎসা নেই, ১০ হাজার মানুষ ইতালির পথে রয়েছেন। এ ধরনের আজগুবি মিথ্যা বক্তব্য দিয়ে আন্তর্জাতিক অঙ্গনে বাংলাদেশকে ছোট করা হচ্ছে।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, বিএনপি দেশে-বিদেশে যে ষড়যন্ত্রের রাজনীতিতে বিশ্বাসী, তা আবার প্রমাণ হলো। এমন বক্তব্যে লাখো প্রবাসীদের পাশাপাশি দেশবাসীও ক্ষুব্ধ।

সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী বলেন, কেউ বিদেশে যেতে চাইলে সরকার–নির্ধারিত ১৬টি প্রতিষ্ঠান থেকে করোনার সনদ গ্রহণ করতে হবে।

দুটি প্রতিষ্ঠানের প্রতারণার কারণে নমুনা পরীক্ষায় মানুষের আগ্রহ কমছে বলে উল্লেখ করেন মন্ত্রী। তিনি বলেন, আস্থাও কিছুটা কমেছে। নমুনা সংগ্রহের পর যাতে রেজাল্ট দিতে দীর্ঘ সময় না লাগে, সেদিকে মনোযোগ দিতে হবে। তা না হলে রোগীদের আস্থাহীনতা তৈরি হতে পারে।

ওবায়দুল কাদের বলেন, অসহায়-দরিদ্র মানুষকে ফি দিয়ে পরীক্ষা করাতে হয় বলে তারা নমুনা পরীক্ষা করছে না। করোনার অভিঘাতে অনেক মানুষ এখন কর্মহীন। তাই তাদের আর্থিক সক্ষমতার কথা বিবেচনা করে ফি ছাড়া পরীক্ষার সুযোগ প্রদানের বিষয়টি বিবেচনার জন্য সংশ্লিষ্টদের অনুরোধ জানান মন্ত্রী।

ক্ষমতাসীন দলের সাধারণ সম্পাদক বলেন, সারা দেশে বিভিন্ন স্তরের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে লাখ লাখ শিক্ষক-কর্মচারী কর্মরত। সরকারি ও এমপিওভুক্ত ছাড়া বিশাল একটি অংশ বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে কর্মরত। এই সংকটকালে তাঁদের বেতন-ভাতা দেওয়ার জন্য সংশ্লিষ্টদের প্রতি আহ্বান জানান তিনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *