মাগুরা মর্গে সালমার লাশ-পালিয়েছে

মাগুরা মর্গে সালমার লাশ-পালিয়েছে

মাগুরায় সালমা নামে এক গৃহবধুকে গলায় ফাঁস দিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে। শনিবার সকালে জগদল রূপাটি গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনার পর থেকে স্বামীসহ শ্বশুরবাড়ির লোকেরা পলাতক রয়েছে। পুলিশ ময়নাতদন্তের জন্যে লাশ উদ্ধর করে মর্গে পাঠিয়েছে।

নিহত সালমা খাতুন (১৯) সদর উপজেলার আমুড়িয়া গ্রামের ওমান প্রবাসী ইয়ানুর হোসেনের মেয়ে।

নিহত সালমার ফুফু জোসনা বেগম অভিযোগ করেন, মাত্র পাঁচ মাস আগে রূপাটি গ্রামের আলমগির হোসেনের ছেলে রাজুর মুন্সির (২২)সাথে সালমার বিয়ে দেন তারা। বিয়ের পর থেকে সালমাকে বাবার বাড়িতে আসতে দিতো না। এ অবস্থায় শনিবার সকাল ৮ টায় সালমার শ্বশুর বাড়ি থেকে ফোনে জানানো হয়-সালমা বিদ্যুতস্পৃষ্ট হয়ে অসুস্থ হয়ে পড়েছে। খবর শুনে তারা শ্বশুরবাড়ি জগদল রুপাটি গ্রামে গেলে সালমাকে ঘরের মেঝেতে গলায় ওড়না পেঁচানো মৃত অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখা যায়। এসময় সেখানে স্বামী কিংবা শ্বশুরবাড়ির কাউকে পাওয়া না গেলেও উপস্থিত প্রতিবেশিরা জানান, সালমা স্বামীর সাথে অভিমান করে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে বলে শুনেছেন।

নিহত সালমার দাদা পিকুল জানান, স্বামীসহ শ্বশুরবাড়ির লোকেরা মরদেহ ফেলে বাড়ি থেকে পালিয়ে যাওয়ার কারণেই সালমার মৃত্যু নিয়ে সন্দেহ তৈরি হয়েছে। আমরা অবশ্যই পুলিশের কাছে এর সুষ্ঠু তদন্ত ও বিচার চাই।

মাগুরা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা জয়নাল আবেদিন জানান, খবর পেয়ে নিজে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। মরদেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। ময়না তদন্ত রিপোর্টের পাওয়ার পরই নিশ্চিত হওয়া যাবে এটি হত্যা না আত্মহত্যার ঘটনা

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *