আমরা সত্য প্রকাশে আপোষহীন

আমাদের সাইটে আপনাকে স্বাগতম।

বলরাম মালোর জীবন পঞ্জিকা

1 min read

 

আকরাম হোসেন ইকরাম,॥ মা ইলিশ রক্ষায় সারা দেশের নদ-নদীগুলোতে ৯ই অক্টোবর থেকে ৩০ শে অক্টোবর পর্জন্ত মৎসজীবিদের জাল ফেলা ও ২২ দিন ইলিশ মাছ মাছ ধরা নিষিদ্ধ করা হয়েছে।সারা দেশের ন্যায় মাগুরার নদ নদীগুলোতেও মাছ ধরার উপর নিশেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে।ইলিশ সম্পদ বৃদ্ধিতে প্রজনন মৌসুমের পূর্বে থেকেই জেলেদের সচেতন করা হয়।তার পরও যারা নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে নদীতে নামবে,তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন মৎস বিভাগ। তবে সরকারি অনুদান থাকবে এই সব জেলেদের।কিন্ত তাদের আলো জোটেনি কোন কিছু।গত মঙ্গলবার কথা হয়েছিল বলোরাম মালো নামে একজন মৎস জীবির সাথে।তিনি গ্রামের কাগজ এ প্রতিবেদক কে জানান,সারা বছর তাদের উর্পাযনের একমাত্র উপায় নদীতে মাছ ধরা। অন্ন সংস্থানের জন্য প্রতিদিনই মধুমতি নদী ও গড়াই নদীতে জাল ফেলতে হয়।একদিন মাছ ধরা বন্ধ হলে সেদিন না খেয়ে জীবন কাটাতে হয়। অনেক সাধনার পর ভগবান আমার সংসারে একটা ছেলে সন্তান দিয়েছিল।আবার তাকে ভগবান অল্প সময়ে রেখে পৃথিবী থেকে চিরদিনের জন্য নিয়েও গেছে। ৩টি মেয়ে আর১ স্ত্রী নিয়ে আমার পরিবার ।্স্ত্রীও চলে গেছে বহু আগে। বহুকষ্টে ধার দেনা করে মেয়ে ৩ টি বিবাহ দিয়েছি। তারা পরের সংসার করে।এখন আমিই আমার একমাত্র আয়-উপার্যনের অবলম্বন।জাল ফেলি মাছ ধরি,মাছ বিক্রি করি।এখন বয়স হয়েছে ৭০ বছর।বয়সের ভারে জাল ফেলতে পারিনা।ছেলেটা থাকলে হয়তো আমাকে সে সাহায্যে করতে পারতো । এই নিষেধাজ্ঞার ভিতর ভরসা ছিল সরকারি কিছু পাবো কিন্ত আমার ভাগ্যে কিছু জোটেনি।কত লোক নাম লিষ্ট করে ,বয়স্ক ভাতা দেবে,১০টাকা কেজি চালের কার্ড দেবে।অনেকে বাড়ি এসে প্রতিশ্রুতি দিয়ে চলে যান।প্রতি বছর ভোট আসলেও অনেকে আমার বাড়ি এসে অনেক কথা বলে যায়। বিধির বিধান আমাকে কষ্ট করতেই হবে।অনেক দিন হলো কাকে বলবো,কাকে ধরবো কত দিই বা না খেয়ে থাকা যায়। তিন মেয়ে তারা থাকে, শশুর বাড়িতে । আমার খোঁজ তাদের নেওয়ার সময় কোথায়?বলোরাম মালো কথাগুলো অনেক কষ্টে চোখের জল ফেলছিলেন আর বলছিলেন।তিনি ফরিদপুর জেলার মধুখালি উপজেলার ডুমাইন গ্রামের তারাপদ মালোর ছেলে।

More Stories

1 min read

হাডুডু প্রতিযোগীতা-২০১৯ কাদিরপাড়াকে হারিয়ে শ্রীপুরের জয় ,মাগুরা প্রতিনিধি॥ বীর মুক্তিযোদ্ধা আছাদুজ্জামান সাহেবের স্মৃতি স্বরণে মাদক,সন্ত্রাস,জঙ্গিবাদ,ও গুজবমুক্ত যুবসমাজ গঠনে হাডুডুপ্রতিযোগীতা মাগুরা শেখ রাসেল মিনি স্টেডিয়মে সোমবার শ্রীপুর বনাম কাদিরপাড়া ইউনিয়নের মধ্যেকার খেলায় শ্রীপুর ৪-২ গোলে কাদিরপাড়া ইউনিয়কে পরাজিত করে।আয়োজকরা জানান,এ খেলায় সুস্থ্য ধারার বিনোদনকে উৎসাহিত করে।সুস্থ্য ধারার বিনোদনে মানুষ যখন সম্পৃক্ত হবে তখন তারা শারিরীক মানুসিক ভাবেই সুস্থ্য হয়ে বেড়ে উঠবে।এ জন্য তারা মাদক থেকে দুরে থাকবে যেটা আইনশৃংলা উন্নয়নে পজেটিভ ভুমিকা পালন করবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

You may have missed

1 min read

হাডুডু প্রতিযোগীতা-২০১৯ কাদিরপাড়াকে হারিয়ে শ্রীপুরের জয় ,মাগুরা প্রতিনিধি॥ বীর মুক্তিযোদ্ধা আছাদুজ্জামান সাহেবের স্মৃতি স্বরণে মাদক,সন্ত্রাস,জঙ্গিবাদ,ও গুজবমুক্ত যুবসমাজ গঠনে হাডুডুপ্রতিযোগীতা মাগুরা শেখ রাসেল মিনি স্টেডিয়মে সোমবার শ্রীপুর বনাম কাদিরপাড়া ইউনিয়নের মধ্যেকার খেলায় শ্রীপুর ৪-২ গোলে কাদিরপাড়া ইউনিয়কে পরাজিত করে।আয়োজকরা জানান,এ খেলায় সুস্থ্য ধারার বিনোদনকে উৎসাহিত করে।সুস্থ্য ধারার বিনোদনে মানুষ যখন সম্পৃক্ত হবে তখন তারা শারিরীক মানুসিক ভাবেই সুস্থ্য হয়ে বেড়ে উঠবে।এ জন্য তারা মাদক থেকে দুরে থাকবে যেটা আইনশৃংলা উন্নয়নে পজেটিভ ভুমিকা পালন করবে।