বুধবার, ২২ অগাস্ট ২০১৮, ১১:১০ পূর্বাহ্ন

মুহুরী নদীর বাঁধ ভেঙে ফেনীর ১৫ গ্রাম প্লাবিত

মুহুরী নদীর বাঁধ ভেঙে ফেনীর ১৫ গ্রাম প্লাবিত

ফেনী সংবাদদাতা :
ভারতীয় পাহাড়ি ঢলের পানির চাপে ফেনীর ফুলগাজির দৌলতপুর অংশে মুহুরী নদীর বাঁধের একটি অংশ ভেঙে গেছে। ফলে পানিতে ওই এলাকার ছাগলনাইয়ার ৮টি গ্রাম, ফুলগাজীতে ৫টি গ্রাম, পরশুরামে দুইটি গ্রাম প্লাবিত হয়েছে। তলিয়ে গেছে ফসলি জমি ও রাস্তাঘাট।
মঙ্গলবার (১২ জুন) দিবাগত রাত ১২টা পর্যন্ত মুহুরী নদীর পানি বিপদ সীমার ৮০ সে.মি. ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে বলে জানিয়েছেন পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী কোহিনুর আলম।
সরেজমিনে জানা দেখা গেছে, ছাগলনাইয়া উপজেলার নিন্মাঞ্চলের বাড়ি-ঘর ও রাস্তা-ঘাট তলিয়ে গেছে। ছাগলনাইয়া উপজেলায় মুহুরী নদীর তীরবর্তী মহামায়া ইউনিয়নের পশ্চিম দেবপুর, মাটিয়াগোদা, উত্তর সতর গ্রামের তিন শতাধিক বাড়িতে পানি উঠেছে। এছাড়া শুভপুর ইউনিয়নের চম্পক নগর, দারোগারহাট, রাধানগর ইউনিয়নের নিজপানুয়া, পৌরসভার পশ্চিম ছাগলনাইয়া, মটুয়ার নিন্মাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে। ছাগলনাইয়া করেরহাট, মহুরীগঞ্জ সড়কের ওপর দিয়ে পানি প্রবাহিত হচ্ছে।
মহামায়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান গরীব শাহ হোসেন চৌধুরী বাদশা জানান, তার এলাকায় তিন শতাধিক পরিবার পানিবন্দি হয়ে পড়েছেন।
ফুলগাজী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কিসিঞ্জার চাকমা জানান, ফুলগাজী সদর ইউনিয়নের মুহুরী নদী সংলগ্ন উত্তর দৌলতপুর ও বরইয়া অংশে মঙ্গলবার রাত দশটার দিকে দুটি বাঁধ ভেঙে অন্তত ৫টি গ্রাম প্লাবিত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। প্লাবিত গ্রামগুলো হলো, ঘনিয়া মোড়া, উত্তর দৌলতপুর, দক্ষিণ দৌলতপুর, উত্তর বরইয়া ও দক্ষিণ বরইয়া। খবর তিনি ভাঙন কবলিত স্থান পরিদর্শন করেন।
মঙ্গলবার দিবাগত রাত সাড়ে ১২টার দিকে পরশুরামের চিথলিয়া ইউনিয়নের দুর্গাপুর গ্রামের তাকিয়ার পাড়ায় মুহুরী নদীর বেড়িবাঁধ ভেঙে গেছে। দূর্গাপুর ও রতনপুর গ্রামের অধিকাংশ এলাকা বন্যার পানিতে তলিয়ে গেছে।
এদিকে ফেনীর সোনাগাজীর উপকূলীয় এলাকার নিন্মাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে। উপজেলার বিভিন্ন এলাকার খালগুলোতে বাঁধ দিয়ে পানি চলাচলে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করায় ২০ গ্রামে জলাবদ্ধতা দেখা দিয়েছে। এতে দুর্ভোগে পড়েছে স্থানীয়রা। গবাদিপশুর খাদ্য সংকট দেখা দিয়েছে।
ফেনী পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. কোহিনুর আলম বলেন, সোনাগাজী উপজেলার খালগুলোতে বাঁধ দিয়ে যারা প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করেছে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণসহ দ্রুত বাঁধগুলো কেটে দেওয়ার ব্যবস্থা নিবেন।
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মোহাম্মদ মিনহাজুর রহমান বলেন, খালের উপর দেওয়া বাঁধগুলো দ্রুত অপসারনের জন্য তিনি স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদেরকে নির্দেশ দিয়েছেন। প্রয়োজনে তিনি নিজে গিয়ে বাঁধ কেটে জলাবদ্ধতা নিরসনে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




  • ডিজাইনঃবেসিক নিউস২৪
Design & Developed BY ThemesBazar.Com