সোমবার, ২৫ Jun ২০১৮, ০৮:১৩ পূর্বাহ্ন

গুরুতর অভিযোগে আনোয়ার চৌধুরীকে প্রত্যাহার

গুরুতর অভিযোগে আনোয়ার চৌধুরীকে প্রত্যাহার

আন্তর্জাতিক ডেস্ক :
ব্রিটিশ শাসিত দ্বীপপুঞ্জ কেইম্যান আইল্যান্ডে সদ্য নিয়োগ পাওয়া গভর্নর পদ থেকে বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত আনোয়ার চৌধুরীকে সাময়িকভাবে প্রত্যাহার করেছে ব্রিটিশ সরকার। কিছু অভিযোগ আসায় তদন্তের স্বার্থে তাকে এই পদ থেকে সাময়িকভাবে প্রত্যাহার করা হয়েছে।
বুধবার কেইম্যান আইল্যান্ডের হেড অব গর্ভমেন্ট প্রেমিয়ার আলদেন ম্যাকলাইন জানিয়েছেন, আনোয়ার চৌধুরীকে ফরেন অ্যান্ড কমনওয়েলথ অফিসে ডেকে পাঠানো হয়েছে। তদন্ত শেষ না হওয়া পর্যন্ত তিনি লন্ডনেই থাকবেন। আগামী ৪ থেকে ৬ সপ্তাহ তার বিরুদ্ধে তদন্ত চলবে।
আনোয়ার চৌধুরীর অবর্তমানে কেইম্যান আইল্যান্ডে ভারপ্রাপ্ত গর্ভনরের দায়িত্ব পালন করবেন বর্তমান ডেপুটি গর্ভনর ফ্রাঞ্জ মেন্ডারসন।
প্রেমিয়ার আলদেন জানিয়েছেন, তিনি ডেপুটি গর্ভনর ফ্রাঞ্জ মেন্ডারসনকে ইতোমধ্যে অবহিত করেছেন। প্রেমিয়ার ম্যাকলিন আরও জানান, আনাকাঙ্খিত এই খবরটি তিনি কেইম্যান আইল্যান্ডের স্পিকার, ক্যাবিনেট, বর্তমান সরকার এবং বিরোধী দলকে অবহিত করেছেন। তার আশা এই ঘটনা কেইম্যান আইল্যান্ডের সুশাসনের ক্ষেত্রে কোনো প্রভাব ফেলবে না।
উল্লেখ্য, চলতি বছরের মার্চে ব্রিটেনের কেইম্যান আইল্যান্ডের গভর্নর হিসেবে শপথ নিয়েছিলেন বাংলাদেশের সিলেটের সন্তান আনোয়ার চৌধুরী। এর আগে তিনি ঢাকা ও পেরুতে ব্রিটেনের হাই কমিশনার হিসেবে দায়িত্ব পালন ছাড়াও ব্রিটিশ সরকারের আরও গুরুত্বপূর্ণ উচ্চ পদে অধিষ্ঠিত ছিলেন।
ঢাকায় নিযুক্ত সাবেক ব্রিটিশ রাষ্ট্রদূত আনোয়ার চৌধুরী ছিলেন এশিয়ান বংশোদ্ভূত কোনো ব্রিটিশ নাগরিক যিনি প্রথম ব্রিটিশ নিয়ন্ত্রিত কোনো আইল্যান্ডের প্রধান বা গর্ভনর হিসেবে নিয়োগ পান। প্রশাসনিক কাঠামো অনুযায়ী, গভর্নর এ দ্বীপের প্রধান।
জানা গেছে, যুক্তরাজ্য সরকারের ওভারসিস মিনিস্টার লর্ড নাজির আহমদ গর্ভনর পদ থেকে আনোয়ার চৌধুরীকে প্রত্যাহারের এ ঘোষণা দিয়েছেন। তিনি বলেছেন, কয়েকটি অভিযোগের তদন্তের স্বার্থে গভর্নর আনোয়ার চৌধুরীকে কেইম্যান আইল্যান্ড থেকে সাময়িকভাবে প্রত্যাহার করা হয়েছে। তার (আনোয়ার চৌধুরী) বহিস্কারের বিষয়ে আইল্যান্ডের ডেপুটি গর্ভনর ফ্র্যাঞ্জ ম্যান্ডারসনকে অবহিত করা হয়েছে এবং তাকে ভারপ্রাপ্ত গভর্নরের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে।
এছাড়াও আইল্যান্ডের স্পিকার, কেবিনেট, সরকার ও বিরোধী দলকে বিষয়টি জানানো হয়েছে।
বাংলাদেশে নিযুক্ত সাবেক ব্রিটিশ হাইকমিশনার আনোয়ার চৌধুরী ২০১৩ সালে পেরুতেও রাষ্ট্রদূত হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। এছাড়া তিনি ব্রিটিশ ফরেন অ্যান্ড কমনওয়েলথ অফিসের ইন্টারন্যাশনাল ইনস্টিটিউশন বিভাগের পরিচালক হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেন। গভর্নর হিসেবে গত তিন মাস আনোয়ার চৌধুরী যে কেইমেন আইল্যান্ডের নেতৃত্ব দেন তার আয়তন মাত্র ২৬৪ বর্গ কিলোমিটার। এর রাজধানী জর্জটাউন; লোকসংখ্যা ৬০ হাজার।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




  • ডিজাইনঃবেসিক নিউস২৪
Design & Developed BY ThemesBazar.Com