• Sun. May 19th, 2024

Basic News24.com

আমরা সত্য প্রকাশে আপোষহীন

ফরিদপুর উত্তর আড়পাড়া গ্রামে ছাগলকে কেন্দ্র করে তুমুল সংঘর্ষ উভয় পক্ষের মধুখালী থানায় অভিযোগ

Bybasicnews

Jan 15, 2024

ফারুক আহমেদ, স্টাফ রিপোর্টার : ফরিদপুর  জেলার মধুখালি উপজেলার আড়পাড়া ইউনিয়নের উত্তর আড়পাড়া গ্রামের ৭ নং ওয়ার্ডের মোঃ হাবিব মন্ডলের স্ত্রী আলতা বেগম (৫৩) ও পুত্র রাসেল মন্ডল (২৫) একই গ্রামের প্রতিবেশী কুদ্দুস শেখের ২ কন্যা আরিফা খাতুন ও তুলি খাতুনের সাথে সরিষা-কলাই জমিতে ছাগল যাওয়াকে কেন্দ্র করে গত ৬ জানুয়ারি অনুমান দুপুর ১২ টার সময় তুমুল ঝগড়া মারামারি ও সংঘর্ষের সৃষ্টি হয়ে ছিলো। উভয়পক্ষই মধুখালি থানায় অভিযোগ মামলা দায়ের করেছে। বুধবার ১০ জানুয়ারি ২০২৪ তারিখ রাসেল ও আলতা বেগম এখন শারীরিক গুরুতর মারাত্মক জখম অবস্থায় মধুখালি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রয়েছে।  রাসেল মন্ডল মধুখালী থানায় অফিসার ইনচার্জ বরাবর অভিযোগ দায়ের করেন, অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, আড়পাড়া ইউনিয়নের উত্তর আড়পাড়া গ্রামের মোঃ হাবিব মন্ডলের পুত্র মোঃ রাসেল মন্ডল (২৩) মধুখালী থানায় অভিযোগে বিবাদী করা হয় উত্তর আড়পাড়া গ্রামের আব্দুল কুদ্দুস শেখের পুত্র আব্দুল ছবুর শেখ (৩০), রশিদ শেখের পুত্র মোঃ নজরুল শেখ (৫৫), মোঃ রুবেলের স্ত্রী আরিফা খাতুন (২৬), কুদ্দুস শেখের কন্যা তুলি বেগম (৩২), মৃত মুনতাজ শেখের পুত্র মোঃ কুদ্দুস শেখ এবং রাজধরপুর গ্রামের জহিরের পুত্র মোঃ কাশেম (৩৮)। ছবুর, নজরুল, আরিফা, তুলি ও কুদ্দুস শেখের সাথে পূর্ব সময় হতে জমিজমাসহ বিভিন্ন বিষয় নিয়ে বিরোধ চলছে রাসেলদের পরিবারের। কুদ্দুস শেখের পরিবার বৃন্দগণ জোর পূর্বক হাবিব মন্ডলের পুকুরে গরুর গোবর-চূনা ফেলে পরিবেশ নষ্ট করে। তারা নিষেধ করলে কুদ্দুস শেখের পরিবার মাঝে মধ্যেই রাসেলদের বসত ঘরের উপর ঢিল ছুড়ে মারে। এরই ধারাবাহিকতায় গত ৬ জানুয়ারী অনুমান দুপুর ১২ টার সময় রাসেলদের বাড়ির পালানে সরিষা খেসারী কলাই ক্ষেতে কয়েকটি ছাগল এসে খেসারী খেয়ে ক্ষতি সাধন করলে আলতা বেগম (৫৩) আরিফাদেরকে ডেকে তাদের ছাগল বেধে রাখতে বললে তারা সকলে মিলে খেসারী কলাই ক্ষেতে প্রবেশ করে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করতে থাকে। আলতা বেগম গালিগালাজ করতে নিষেধ করলে নজরুলের হুকুমে ছবুর শেখ লোহার রড দিয়ে মাজায় হাড় ভাঙ্গা আঘাত করে। নজরুল রামদা দিয়ে আলতা বেগমের ডান হাতে কোপ মেরে রক্তাত জখম করে দেয়। আরিফা খাতুন মুখে ঘুষি মেরে নিলাফোলা জখম করে আলতা বেগমকে। এরপর সকলে মিলে আলতা বেগমকে এলোপাতাড়ি পাড়াইয়া শরীরের বিভিন্ন স্থানে নিলাফোলা জখম করে। কাশেম এসে আলতা বেগমের পরনের কাপড় টানা হেচড়া করে শ্লীলতাহানি ঘটায়। কুদ্দুস শেখ এসময় আলতা বেগমের গলায় থাকা ১০ আনা ওজনের (অনুমান মূল্য ৬০ হাজার টাকা) একটি স্বর্ণের চেইন কেড়ে নেয়। রাসেল এসে ঠেকাতে গেলে তুলি এসে বাঁশের লাঠি দিয়ে মুখে বাড়ি মারে নীলাফুলা জখম করে এবং ছবুর শেখ, নজরুল ও আরিফা খাতুন সুযোগ মতো রাসেলের পুরুষাঙ্গ ও অন্ডকোষ চেপে ধরে। ঘটনার সাক্ষী উত্তর আড়পাড়া গ্রামের সাফি মন্ডলের স্ত্রী মরিয়ম বেগম (৩২), মফিজ মন্ডলের স্ত্রী সাবিনা বেগম (৩০), ইলিয়াজ শেখের স্ত্রী আন্না বেগম (৩২) সহ অন্যান্য লোকজন এগিয়ে আসলে বিবাদীগণ সবাই প্রাণনাশের হুমকি দিয়ে চলে যায় এবং পরবর্তীতে লোকজন মারাত্মক আহত অবস্থায় উদ্ধার করে রাসেল ও আলতা বেগমকে মধুখালি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসার জন্য পাঠায়, উল্লেখ্য এসময় মারধরের কারণে আলতা বেগম প্রস্রাব ও পায়খানা করে দিয়ে ছিলো।  ঘটনার এ ব্যাপারে ছবুর শেখ ও তুলি জানায়, রাসেল মন্ডল আরিফার গলার লকেটসহ সোনার চেইন ছিনতাই করেছে। এজন্য আমরা মধুখালি থানায় অভিযোগ দায়ের করেছি। মামলার তদন্ত এসআই সৈয়দ তোফাজ্জেল হোসেন জানান, ছাগল জমিতে খেসারী কলাই খেয়ে ছিলো বলে এই ঘটনার সূত্রপাত। তিনি আরও জানান আজ রাতে মধুখালি থানার অফিসার ইনচার্জ ওসি মিরাজ হোসেন উভয় পক্ষের ঘটনা নিয়ে আলোচনা করবেন। ৭ নং ওয়ার্ডের মেম্বার আলাল জানান, ঘটনাটি আড়পাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান বদরুজ্জামান বাবু কে জানানো হয়েছে।  শফিকুল মন্ডলের স্ত্রী মিনা খাতুন জানান, আরিফার সোনার চেইন তার মুঠোর মধ্যে ছিলো। আমি নিজের চোখে দেখেছি তার হাতে সোনার চেইন ছিলো এবং আরিফা আমাকে বলে ছিলো লকেট পাওয়া যাচ্ছে না জমিতে পড়ে গিয়েছে। আর এখন রাসেলের দোষ দিচ্ছে এটা সম্পূর্ণ মিথ্যা কথা, রাসেল নিরপরাধ তাকে ফাঁসানোর জন আরিফা এখন মিথ্যার আশ্রয় নিচ্ছে।  ভুক্তভোগী রাসেলদের পরিবার এখন পুলিশ ও প্রশাসনের কাছে জীবনের নিরাপত্তা সহ সঠিক তদন্ত সাপেক্ষে সুষ্ঠু বিচার কামনা করেছেন। ফারুক আহমেদ, স্টাফ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *